১২ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৬ষ্ঠ বর্ষ ৪৭শ সংখ্যা: বার্লিন, রবিবার ১৯নভে–২৫নভে ২০১৭ # Weekly Ajker Bangla – 6th year 47th issue: Berlin,Sunday 19Nov-25Nov 2017

জার্মানিতে নতুন নির্বাচন এড়ানো কি সম্ভব হবে?

জার্মানিতে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা গোটা বিশ্বে গভীর আগ্রহের সৃষ্টি করছে

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2017-11-21   সময়ঃ 01:12:44 পাঠক সংখ্যাঃ 40

জোট সরকার গঠনের উদ্যোগ ব্যর্থ হবার পর জার্মানিতে নতুন নির্বাচনের সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে৷ কিন্তু জার্মান প্রেসিডেন্ট সরকার গঠনের সব সম্ভাবনা খতিয়ে দেখতে বিভিন্ন দলের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা শুরু করছেন৷

জার্মান প্রেসিডেন্টের পদ যে শুধু আলঙ্কারিক নয়, সোমবার থেকে তা আবার স্পষ্ট হয়ে উঠেছে৷ সাধারণ নির্বাচনের প্রায় দু'মাস পরে ‘জামাইকা' জোট সরকার গঠনের উদ্যোগ ব্যর্থ হয়েছে৷ এই অবস্থায় সংসদ ভেঙে নতুন করে নির্বাচন ডাকার কঠিন সিদ্ধান্ত নেবার আগে জার্মান প্রেসিডেন্ট ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ার বাকি সব বিকল্প খতিয়ে দেখতে চান৷ সেই লক্ষ্যে তিনি একাধিক দলের নেতাদের সঙ্গে নিভৃতে আলাপ-আলোচনা করছেন৷ সোমবার তিনি বলেন, ‘‘সব দলই আশা করি সংলাপের জন্য প্রস্তুত৷''

বর্তমান সংকট কাটানোর সহজ চাবিকাঠি রয়েছে সামাজিক গণতন্ত্রী এসপিডি দলের হাতে৷ প্রেসিডেন্ট হবার আগে পর্যন্ত স্টাইনমায়ার এই দলেরই নেতা ছিলেন৷ কিন্তু সোমবারই দলের সভাপতি মার্টিন শুলৎস আরও একবার সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, তাঁর দল আবার মহাজোট সরকারের সদস্য হবে না৷ তিনি বলেন, এসপিডি দল নতুন নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত৷ জনমত সমীক্ষা অনুযায়ী, দলের সমর্থকরাও এই অবস্থানের পক্ষে৷ বুধবার শুলৎস প্রেসিডেন্ট স্টাইনমায়ারের সঙ্গে আলোচনা করবেন৷

নতুন নির্বাচন হলে জার্মান চ্যান্সেলর হিসেবে আবার ইউনিয়ন শিবিরের প্রার্থী হতে প্রস্তুত আঙ্গেলা ম্যার্কেল৷ নির্বাচনের আগে তিনি ভোটারদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, যে জয়ের ক্ষেত্রে তিনি আরও চার বছরের জন্য চ্যান্সেলর থাকতে চান৷ ম্যার্কেল সেই প্রতিশ্রুতি ভাঙাতে চান না৷ সংখ্যালঘু সরকার গঠনের চেয়ে নতুন নির্বাচনই চাইছেন তিনি৷

জার্মানিতে নতুন নির্বাচনের বিকল্প কী হতে পারে, এখনো তার কোনো স্পষ্ট রূপরেখা দেখা যাচ্ছে না৷ আবার নতুন করে ‘জামাইকা' জোট গঠনের প্রচেষ্টার কথা শোনা যাচ্ছে৷ যে দল সপ্তাহান্তে এই আলোচনা ভেঙে দিয়েছে, জার্মান প্রেসিডেন্ট মঙ্গলবারই সেই উদারপন্থি এফডিপি দলের নেতা ক্রিস্টিয়ান লিন্ডনারের সঙ্গে আলোচনা করবেন৷ জামাইকা জোট গঠনের প্রস্তুতি প্রায় সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছিল বলে অন্য দলগুলির কয়েকজন প্রতিনিধি যে দাবি করেছেন, লিন্ডনার তা অস্বীকার করেন৷ তিনি আলোচনায় সবুজ দলের আধিপত্যের সমালোচনা করেন৷
 
জার্মানিতে রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা ইউরোপসহ গোটা বিশ্বে গভীর আগ্রহের সৃষ্টি করছে৷ বিশেষ করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মধ্যে সংস্কারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের প্রেক্ষাপটে জার্মানিতে দ্রুত এক স্থিতিশীল সরকার গঠনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দিচ্ছে৷ আগামী সরকারের প্রধান থাকলেও চ্যান্সেলর ম্যার্কেল কতটা শক্তিশালী থাকতে পারবেন, সেই প্রশ্নও বিভিন্ন মহলে উঠে আসছে৷
 
এসবি/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স)

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ