১২ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৬ষ্ঠ বর্ষ ৪৯শ সংখ্যা: বার্লিন, রবিবার ০৩ডিসে–০৯ডিসে ২০১৭ # Weekly Ajker Bangla – 6th year 49th issue: Berlin,Sunday 03Dec-09Dec 2017

শাকিব অপুকে একতরফা ডিভোর্স লেটার পাঠালো

আব্রাহাম জয় কি মা বাবার ভালোবাসা হারালো?

প্রতিবেদকঃ শ্রুতি খান তারিখঃ 2017-12-05   সময়ঃ 14:28:15 পাঠক সংখ্যাঃ 704

আব্রাহাম জয়ের মতো হাজারো শিশু তার বাবা মাকে হারাচ্ছে ডিভোর্স নামের আইনি ব্যাবস্থার কারনে। মেয়েরা সেলিব্রেটি হলে সংসার হয়না, আর সংসার হলে সেলিব্রেটি হয়না। তবে মেয়েরা শ্রমিক হলে সেলিব্রেটি সংসার কোনটাই হয়না। আজ সোশ্যাল মিডিয়াতে একটি সংবাদ ভাইরাল হয়ে ঘুরছে সবার টাইমলাইনে "শাকিব অপুকে ডিভোর্স লেটার পাঠালো" এই সংবাদটি ।

 

মানুষ যখন বিবেকহীন হয় তখন হিনমন্যতায় ভুগে। নিজের অস্তিত্বের কথা ভুলে যায়। যারা সারা জীবন একসাথে থাকতে চায় তারা কখনো কারো দোষ খুজে বেড়ায় না। সব সময় একজন অন্য জনের দোষ গোপন করে। একজন অন্য জনকে সম্মান করে। সারা জীবন একটি নিয়মেই সমাজটা চলে আসছে। এর থেকে বার হবার কি কোন উপায় নেই? ভালোবাসা কি শুধু দেনমোহরের মধ্যেই সীমাবদ্ধ নাকি?সংসার সন্তান শুধুই কি দেনমোহর বা কাবিন নামা আর ডিভোর্সএর মধ্যেই থাকে? জীবনটা এতো অদ্ভুত কেনো তার জবাব মিলেনি আজও। বর্তমানের ৯৯% পুরুষ পরনারীতে আসক্ত হচ্ছে। নিজের ঘড় নিজের বৌ এমন কি নিজের সন্তানের কথাও অস্বীকার করে। আর একটি মেয়ের জীবন নষ্ট করার জন্য উঠে পরে লাগে।

পুরুষরা কি কখনোই তার ভালোবাসার মানুষের মন বুঝবেনা? তেমনি যদি বলি নারীরা ও  বুঝার দরকার আছে। আজকের শাকিব অপুর সংসারটা শুধু মাত্র তৃতীয় জনের রাজনীতির কারনে নষ্ট হলো।এই বিষয়টা সকলেই অজানা নয়। সাকিব যে তার কেরিয়ারের জন্য কতটা কষ্ট করেছে তা সবাই জানেন। তেমনি অপু নিজেও স্বীকার করে এসেছেন সবসময়। সাকিবের পিছনে যে শত্রুরা নীল নকশা একেছে তা অপু বুঝতে পারেনি। অপু ও যে শাকিবের কতটা জীবনি শক্তি ছিলো তাও বুঝতে পারেনি। একজনের সংসারে যদি দূর্বলতা থাকে সেখানে বাইরের লোকেরা সুযোগ নেয়। ভালোবাসা  এমন এক শক্তি যা কারো পাশে থাকলে কেও ক্ষতি করতে পারেনা।

তাই শাকিবের জীবন থেকে ভালোবাসার শক্তিটাই কেড়ে নিতে সাকসেস হলো। অপু এই করেছে শাকিব সেই করেছে সবকিছুই মিথ্যা বাহানা। শুধু একজন অন্য জনকে ছেড়ে দেয়ার বাহানা। আসলো সবাই গাছে উঠাবে কেও নামাবে না এটা আগে বুঝেনা। বুঝলে সব হারিয়ে আর আফসোস করতো না। অপু শাকে যে সন্তান উপহার দিয়েছে তার দিকে চিন্তা করা দরকার ছিলো।

জীবনের সাথে সংগ্রাম করে এমন একটি উপহার শুধু নারীরাই দিতে পারে। যতকিছুই হোক একটি নারীর এতো ভয়ঙ্কর উপহারের দান, পৃথিবীর অন্য কিছুতে তুলোনা হয় না। পুরুষরা যদি নারীর একদিনের কষ্ট অনুভব করতো তাহলে নারীদেরকে ভক্তি করতো সারা জীবন। নিজের মায়ের দিকে যদি একবার খেয়াল করেন পুরুষরা তাহলে সে তার স্ত্রীর ভাষা বুঝতো। যে নিজেকে ভালোবাসেনা সে আর কাওকেই ভালোবাসেনা। তবে সাকিব খান হয়তো সালমানশাহ এর হত্যায় তার স্ত্রীর জরিত থাকার ঘটনাকে বারবার মনে করে। অপুকে নিয়েও সেই আশংকায় ছিলেন হয়তো তাই আর রিক্স নিতে চান নি। তবে সালমানের তো সন্তান ছিলোনা। সাকিব এমন একটি ছেলে সন্তান যাকে তুমি এতো ভালোবাসো তার সম্মান তুমি কিভাবে দিলা? এমন ঘড় এমন সংসার কোন নারীর জীবনে যেনে না আসে।

এবার সাকিবের ডিভোর্স লেটার প্রসঙ্গে কিছু কথা: বিয়ে যদি দুজনে মিলে করতে হয় তাহলে ডিভোর্স কেনো একা হবে। ধর্মিয় মারপেচে ফেলে যদি তালাক দেয়া হয় তাহলে তো আগেও শাকিব একটি মুসলিম মেয়েকে নিয়ে এগুলো করেছে সেখানে মিডিয়া চুপ কেনো, বা  ঐ মেয়েটির দোষ কোথায়? শাকিব  আবার অন্য কাওকে বিয়ে করবে তাকে ও এভাবেই চেপে দিবে। এভাবে যদি চলতে থাকে দেশ আর দশ সমাজ নষ্ট হবে না কেনো। মিডিয়ার শীর্ষ পর্যায়ে থেকেও সে যা খুশি তাই করে যাচ্ছে। আমরা ও তাকে নিয়ে খুব নাচানাচি করি। আসলে আমরা সকলেই একটা কিছু পেলে সেটারই পিছনে ছুটি। ভালো মন্দ যাচাই করিনা। টাকা হলেই বিয়ে করা যায় তালাক দেয়া যায়। এই ধরনের মনমানষিকতা থেকে যদি আমরা বার হতে না পারি তাহলে সমাজ কখনো বদলাবেনা।
 
লেখক শ্রুতি খান একজন মিডিয়া ব্যক্তিত্ব বহুদিন থেকে অভিনয়ের সাথে যুক্ত থাকার পর এখন উত্তর লিমিটেড এর সত্ত্বাধিকারী, নাটক ও মিউজিক প্রোডাকশনে হাত পাকিয়েছেন। লেখালেখিতেও মুন্সিয়ানার পরিচয় দিয়েছেন, বর্তমানে 'তিন বাংলা সাহিত্য সংগঠনে'র প্রচার সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করছেন শ্রুতি খান।
 
 

 

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ