১৯ অক্টোবর ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ২২ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ২৮ মে– ০৩ জুন ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 22 issue: Berlin, Monday 28May-03Jun 2018

গত সপ্তাহজুড়ে সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন

এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ১২৬ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৮ শতাংশ

প্রতিবেদকঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর তারিখঃ 2013-06-01   সময়ঃ 03:58:36 পাঠক সংখ্যাঃ 747

ঢাকা: দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) গত সপ্তাহজুড়ে সূচক সামান্য বাড়ালেও লেনদেনের পরিমাণ কমেছে।
গত সপ্তাহে ডিএসইর সাধারণ সূচক বেড়েছে ৩ দশমিক ১৮ পয়েন্ট এবং লেনদেন কমেছে ১৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ।
অন্যদিকে গত সপ্তাহে সিএসইতে সূচক ২৩৪ পয়েন্ট বাড়লেও লেনদেন কমেছে ২ কোটি ৪০ লাখ ২২ হাজার ৭৫০ টাকা।
গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার ডিএসইর সাধারণ সূচক ছিল ৩ হাজার ৯৭৪ দশমিক ১৫ পয়েন্ট। সপ্তাহ শেষে বৃহস্পতিবার সূচক বেড়ে দাঁড়ায় ৪ হাজার ১০০ দশমিক ৫১ পয়েন্টে। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ১২৬ দশমিক ৩৬ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৮ শতাংশ।
অন্যদিকে, ডিএসই’র ডিএসইএক্স সূচকও বেড়েছে ১১৫ দশমিক ৯৮ পয়েন্ট এবং ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ৩৯ দশমিক ২২ পয়েন্ট।
এদিকে, গত সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার সিএসইর সাধারণ সূচক ছিল ৭ হাজার ৪১০ পয়েন্ট। সপ্তাহ শেষে বৃহস্পতিবার সূচক বেড়ে দাঁড়ায় ৭ হাজার ৬৪৪ পয়েন্টে। অর্থাৎ এক সপ্তাহের ব্যবধানে সূচক বেড়েছে ২৩৪ পয়েন্ট বা ৩ দশমিক ১৬ শতাংশ।
গত সপ্তাহের অধিকাংশ কার্যদিবসেই ডিএসই ও সিএসই’র সূচক বেড়েছে।এছাড়া বেড়েছে ডিএসই ও সিএসইতে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দাম।
গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট লেনদেন কমেছে ১৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ। লেনদেন হয়েছে মোট এক হাজার ৪৮৯ কোটি ৮১ লাখ ৫০ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল এক হাজার ৭৪০ কোটি ৩ লাখ ৭২ হাজার ৩৫৩ টাকা।
গত সপ্তাহের ৫ কার্যদিবসে ডিএসই’র ২৯৩টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ২৪২টির, কমেছে ৩৮টির ও অপরিবর্তিত ছিল ১০টির দাম।লেনদেন হয়নি ৩টি প্রতিষ্ঠানের। এর আগের সপ্তাহে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠাগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছিল মাত্র ৭৬টির, কমেছে ২০০টির ও অপরিবর্তিত ছিল ১২টির দাম। লেনদেন হয়নি ৫টি প্রতিষ্ঠানের।
ডিএসই ও সিএসই’র ওয়েবসাইট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এদিকে গত সপ্তাহের মোট ৫ কার্যদিবসে ডিএসই’র দৈনিক গড় লেনদেন কমেছে। গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন দাঁড়ায় ২৯৭ কোটি ৯৬ লাখ ৩০ হাজার ১৭২ টাকা, আগের সপ্তাহে গড় লেনদেন ছিল ৪৩৫ কোটি ৯৩ হাজার ৮৮ টাকা। অর্থাৎ গত সপ্তাহে আগের সপ্তাহের চেয়ে গড় লেনদেন কমেছে ৩১ দশমিক ৫০ শতাংশ।
এছাড়া ডিএসইতে কমেছে শেয়ার লেনদেনের পরিমাণ। গত সপ্তাহে ডিএসইতে মোট ৪৪ কোটি ১২ লাখ ৫৫ হাজার ২৭৫টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহে এই শেয়ার লেনদেনের পরিমাণ ছিল ৫১ কোটি ৯৭ লাখ ৮৫ হাজার ১২৭টি। সুতরাং গত সপ্তাহে শেয়ার লেনদেন কমেছে ১৫ দশমিক ১১ শতাংশ।
সাপ্তাহিক দাম বাড়ার ভিত্তিতে ডিএসইর শীর্ষ দশ কোম্পানি হলো- দ্বিতীয় আইসিবি মি. ফান্ড (৩১ দশমিক ৩১ শতাংশ), রহিম টেক্সটাইল (৩০ দশমিক ১০ শতাংশ), সিভিও পেট্রোকেমিকেল (২৫ দশমিক ৯০ শতাংশ), স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকস (২১ দশমিক ৮৯ শতাংশ), কোহিনূর কেমিকেল (২০ দশমিক ৮৬ শতাংশ), এমবি ফার্মা (২০ দশমিক ৬৪ শতাংশ), ডেল্টা স্পিনার্স (১৭ দশমিক ৫৮ শতাংশ), বঙ্গজ (১৬ দশমিক ৭১ শতাংশ), সোনালী আঁশ (১৫ দশমিক ৬৯ শতাংশ) এবং জেমিনি সি ফুড (১৫ দশমিক ৬৫ শতাংশ)।
অন্যদিকে সপ্তাহ শেষে দাম কমার ভিত্তিতে ডিএসইর শীর্ষ কোম্পানিগুলো হলো- সাভার রিফ্র্যাক্টরিজ (১৫ দশমিক ৯৬ শতাংশ), ওরিয়ন ফার্মা (১৩ দশমিক ৬২ শতাংশ), সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক (১১ দশমিক ১৮ শতাংশ), সিএমসি কামাল (১০ দশমিক ৯০ শতাংশ), মেঘনা পেট (০৯ দশমিক ০৯ শতাংশ), প্রগতি লাইফ ইন্স্যুরেন্স (৭ দশমিক ৫৪ শতাংশ), রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স(৭ দশমিক ২৮ শতাংশ), সমতা লেদার (৬ দশমিক ৬২ শতাংশ), সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ (৫ দশমিক ৬১ শতাংশ) এবং মেঘনা কনডেন্স মিল্ক (৪ দশমিক ৮৮ শতাংশ)।



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ