২১ জুন ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ০২ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ০৮জানু–১৪জানু ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 02 issue: Berlin, Monday 08Jan-14Jan 2018

৫০ বছরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা, শীতে কাঁপছে দেশ

এ মাসে আরো কমপক্ষে ৪-৫ দিন এই তীব্র শীত অব্যাহত থাকবে

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-01-08   সময়ঃ 16:48:36 পাঠক সংখ্যাঃ 136

বাংলাদেশে গত ৫০ বছরে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়৷ সারাদেশে চলছে শৈত্য প্রবাহ৷ আর এই তীব্র শীতে গরম কাপড়ের সংকটে পড়েছে নিম্নবিত্ত মানুষ৷ এ মাসে আরো কমপক্ষে ৪-৫ দিন এই তীব্র শীত অব্যাহত থাকবে৷

এবার শীত একটু দেরি করে এলেও তীব্রভাবেই এসেছে৷ সোমবার সকালে দেশের সর্ব উত্তরের উপজেলা তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ গত বছর এইদিনে তেতুলিয়ার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যক্ষেণ কেন্দ্রের পর্যবেক্ষক তৌহিদুর রহমান ডয়চে ভেলেকে জানান,‘‘ সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা পর্যন্ত এই তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়৷  গত ৫০ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে এটাই সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড৷ এর আগে ১৯৬৮ সালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ২ দশমিক ৮ ডিগ্রি৷''

তবে তিনি জানান,বিকেলের দিকে রোদ ওঠায় তাপমাত্রা বেড়ে ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসে ওঠে৷

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এখন সারাদেশে তীব্র শৈত্য প্রবাহ চলছে৷ সারাদেশের গড়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা এখন সাত ডিগ্রির নীচে৷ সাধারণভাবে আমরা ১০ ডিগ্রির নিচে তাপমাত্রা হলে শৈত্য প্রবাহ লক্ষ্য করি৷ এখন সারাদেশেই চলছে তীব্র শৈত্য প্রবাহ৷ তাপমাত্রা কমার সঙ্গে উত্তর-পশ্চিমের শীতল বাতাস শীতের তীব্রতা বাড়িয়ে দিয়েছে৷ আগামী ১০ জানুয়ারি পর্যন্ত শীতের এই তীব্রতা থাকবে৷ এরপর রাতের তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করবে৷ তবে পুরো জানুয়ারি মাস জুড়েই শীত থাকবে৷''

সোমবার ঢাকার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ৯ দশমিক ৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস৷ সৈয়দপুরে তাপমাত্রা ২ দশমিক ৯,  নীলফামারীর ডিমলায় ৩ এবং দিনাজপুরে ৩ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে৷

এই তীব্র শীতে সারাদেশ, বিশেষ করে উত্তরাঞ্চলের মানুষ বিপাকে পড়েছে৷ নিম্নবিত্ত ও খেটে খাওয়া মানুষ শীত নিবারণের বস্ত্রের অভাবে কষ্ট পাচ্ছে৷ শীতের কারণে অনেকেই কাজেও যেতে পারছেন না৷ শীতজনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন শিশু ও বয়স্করা৷

 

তেঁতুলিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম শাহীন ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘আমার উপজেলায় আগে ২৫শ'র মতো কম্বল এসেছে সরকারি অনুদান হিসেবে৷ তা আগেই বিতরণ করা হয়েছে৷ তবে এখন আরো ১০-১২ হাজার কম্বল প্রয়োজন৷ গরীর মানুষ শীতে কষ্ট পাচ্ছে৷ তাঁরা শীতে কোনো কাজও করতে পারছে না৷''

পঞ্চগড়ের সাংবাদিক  সাজ্জাদুর রহমান ডয়চে ভেলেকে জানান, ‘‘তীব্র শীতে পঞ্চগড়ের মানুষ দুর্বিষহ জীবন যাপন করছে৷ যাঁরা নিম্নবিত্ত, তাঁরা শীত এবং অর্থ দুটোরই কষ্টে আছে৷ পুরো পঞ্চগড়ে ৫ লাখ কম্বলের প্রয়োজন থাকলে বিতরণ হয়েছে মাত্র ৩০ হাজার৷ আর পৌর এলাকায় ১৫ লাখ কম্বলের চাহিদার বিপরীতে পাওয়া গেছে মাত্র ৩৭৫টি কম্বল৷''

তিনি বলেন, ‘‘অভিযোগ আছে যে, কম্বল বিতরণ করা হচ্ছে তা-ও প্রকৃত যাদের প্রয়োজন, তারা পচ্ছে না৷ বিতরণকারীরা তাদের আত্মীয়-স্বজন ও পরিচিতদের মধ্যে বিতরণ করছেন৷''

পঞ্চগড় ছাড়াও দেশের উত্তরের জেলা রংপুর, দিনাজপুর, কুড়িগ্রাম, লালমনিরহাট, নিলফামারী, ঠাকুরগাও, বগুড়ায় একই অবস্থা৷ রংপুরে পাঁচ লাখ কম্বলের চাহিদার বিপরীতে সামান্য কিছু কম্বল পাঠানো হয়েছে৷

দিকে শীত ও কুয়াশার কারণে আলু ও গমসহ রবিশস্যে ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে৷ বোরো ধানের বীজতলা  পলিথিন দিয়ে ঢেকে রক্ষা করা হচ্ছে৷ তবে শীতের এই তীব্রতা অব্যাহত থাকলে বীজতলাও নষ্ট হতে পারে৷

ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনামন্ত্রনালয়ের সচিব শাহ কামাল ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘উত্তরাঞ্চলের ২০ জেলায় আমরা নভেম্বরের শুরুতেই  ৩২ লাখ কম্বল পাঠিয়েছি৷ গত দু'দিনে পাঠানো হয়েছে আরো ৯ লাখ৷ আর ৮০ হাজার প্যাকেট শুকনো খাবার পাঠানো হয়েছে৷''

তিনি আরো বলেন, ‘‘প্রতিটি জেলায়ই একজন করে কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়েছে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণে রাখার জন্য৷ আমরাও কেন্দ্র থেকে জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি৷''

এদিকে শীতজনিত রোগ, বিশেষ করে ডায়রিয়া ও শ্বাসকষ্টসহ আরো কিছু রোগের চিকিৎসা দিতে রংপুর বগুড়াসহ বেশ কয়েকটি জেলায় মেডিক্যাল টিম কাজ করছে বলে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় জানিয়েছে৷

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ