২১ আগস্ট ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ০২ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ০৮জানু–১৪জানু ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 02 issue: Berlin, Monday 08Jan-14Jan 2018

‘নির্বাচনকালীন সরকার' নিয়ে আলোচনা চায় বিএনপি

শুক্রবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-01-14   সময়ঃ 00:16:16 পাঠক সংখ্যাঃ 241

ডয়চে ভেলেকে দলটির মহাসচিব জানিয়েছেন যে, প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে নির্বাচনকালীন যে সরকারের কথা বলেছেন, তা নিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নিতে পারে সরকার৷

শনিবার ডয়চে ভেলেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন তিনি৷

এর আগে, শুক্রবার জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ সেখানে তিনি বরাবরের মতোই আলোচনার বিষয়টি নাকোচ করে সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের কথা বলেছেন

তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে আলোচনার সব পথ রুদ্ধ করে দিয়েছেন৷ যদিও একদিন পর শনিবার তিনি আলোচনার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী যে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের কথা বলেছেন, সে বিষয়ে আলোচনা করতে সংলাপ ডাকতে পারেন৷

ডয়চে ভেলের সঙ্গে আলাপকালে ফখরুল বলেন, ‘‘আমরা মনে করি, সরকার যদি সাধারণ মানুষের কথা ভাবে তাহলে তাদের আলোচনার পথে আসতেই হবে৷ এর কোনো বিকল্প নেই৷''

 

যদি আওয়ামী লীগ আলোচনা না করে তাহলে বিএনপি কি করবে? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘‘বিষয়টি নিয়ে আমরা এখনো কোন সিদ্ধান্ত নেইনি৷'' তবে একটি অন্তবর্তী সরকারের রূপরেখা দেয়ার পরিকল্পনার কথা জানান তিনি৷

‘‘সময় হলেই আমরা রূপরেখা দেব৷ তবে আমরা মনে করি নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নিতে পারে সরকার৷ আমরা সে আহ্বানই জানাই৷''

বর্তমান সরকারের এ মেয়াদের চার বছর পূর্তিতে জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে শেখ হাসিনা একাদশ সংসদ নির্বাচনের আগে ‘নির্বাচনকালীন সরকার' গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাতে সব দলের অংশগ্রহণের আশা প্রকাশ করেন৷

এদিকে, বিশ্লেষকদের মত, দুইদলের অনমনীয়তার কারণে সব দলের অংশগ্রহণে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে কি-না তা অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে৷

রাজনীতি বিশ্লেষক সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)-এর সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার মনে করেন, এবারো একটি একতরফা নির্বাচনের শঙ্কা তৈরি হয়েছে৷

‘‘এবার প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে যে কথা বলেছেন, ২০০৬ সালেও প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ভাষণে খালেদা জিয়াও একই কথা বলেছিলেন৷ ২০১৩ সালেও শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রী হিসেবে একই কথা বলেছিলেন৷ তাঁরা বলেছিলেন সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে৷’’ ডয়চে ভেলেকে বলছিলেন তিনি৷

 

‘‘এতে দেখা গেছে, ২০০৭ সালে নির্বাচন হলো না, অন্য সরকার এলো৷ ২০১৪ সালেও একতরফা নির্বাচন হল, যা কোনোভাবে গ্রহণযোগ্য নয়৷ এবারও প্রধানমন্ত্রী একই কথা বললেন৷ যার ফলে যদি একতরফা একটা নির্বাচন হয়ে যায়, তা আমাদের বিপর্যয়ের দিকে নিয়ে যাবে৷''

একই ধরনের ভাবনা সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা এম হাফিজ উদ্দিন খানেরও৷

ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীর ভাষণে অনেক কিছুই পরিষ্কার হয়নি৷ নির্বাচনকালীন এই পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেয়া হবে কি না, না এই পার্লামেন্টই থাকবে তা পরিষ্কার নয়৷ তাই কেমন নির্বাচন হতে যাচ্ছে, সে ব্যাপারে আমরা কিছুই বুঝতে পারছি না৷''

 

 

 

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ