২১ আগস্ট ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ০৩ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ১৫জানু–২১জানু ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 03 issue: Berlin, Monday 15Jan-21Jan 2018

যুক্তরাষ্ট্রের জন্য হুমকি চীন ও রাশিয়া: পেন্টাগন

এটা তাদের ‘স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা'

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-01-21   সময়ঃ 06:18:36 পাঠক সংখ্যাঃ 245

একটি কৌশলপত্রে চীন ও রাশিয়াকে মূল সামরিক প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ‘চিহ্নিত' করেছে যুক্তরাষ্ট্র৷ যুক্তরাষ্ট্রের এমুন আচরণকে ‘সাম্রাজ্যবাদী' বলে আখ্যায়িত করেছে রাশিয়া৷ চীন বলছে, এটা তাদের ‘স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা'৷

শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগ ‘জাতীয় প্রতিরক্ষা কৌশল' শিরোনামের একটি নথি প্রকাশ করে৷ সেখানে চীন ও রাশিয়াকে সবচেয়ে বড় সামরিক হুমকি বলে উল্লেখ করে নিজেদের সামরিক সক্ষমতা বাড়ানোর সুপারিশ করা হয়েছে৷

‘‘দিন দিন এটা স্পষ্ট হয়ে উঠছে যে, চীন ও রাশিয়া এমন একটি কর্তৃত্বপূর্ণ মডেলে পুরো বিশ্বের ওপর তাদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করছে, যেখানে জাতিগুলোর অর্থনৈতিক, কূটনৈতিক ও নিরাপত্তা বিষয়ক সিদ্ধান্তে তারা হস্তক্ষেপ করতে পারে৷'' প্রকাশিত নথির ১১ পৃষ্ঠার সংস্করণে এমনটিই লেখা ছিল৷

নতুন কৌশলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা নীতিতে একটি মৌলিক পরিবর্তন আনার কথা বলা হয়েছে৷ ২০০১ সালের নাইন ইলেভেনের পর মধ্যাপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে সন্ত্রাস দমনে যুক্তরাষ্ট্রের সেনা মোতায়েন ও যুদ্ধ করাই গুরুত্বপূর্ণ ছিল এতদিনের প্রতিরক্ষা কৌশলে৷ কিন্তু সে জায়গা থেকে কিছুটা সরে আসার কথা বলা হচ্ছে এখন৷

 

কৌশলপত্রটি প্রকাশের সময় দেশটির প্রতিরক্ষা সচিব জেমস ম্যাটিস বলেন, ‘‘চীন একদিকে তার লুটেরা অর্থনীতি দিয়ে প্রতিবেশীদের গ্রাস করে ফেলতে চাইছে, অন্যদিকে দক্ষিণ চীন সাগরে সামরিক প্রভাব বাড়াচ্ছে৷''

জেমস ম্যাটিসরাশিয়া সম্পর্কে বলেন, ‘‘রাশিয়া তার নিকটতম রাষ্ট্রগুলোর সীমানা লঙ্ঘন করেছে৷'' জেমস ম্যাটিস

ম্যাটিস ঘোষণা দেন, ‘‘আমরা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দেশে যে যুদ্ধ চালাচ্ছি, তা চালিয়ে যাবো, কিন্তু এখন থেকে আমাদের মূল লক্ষ্য সন্ত্রাসবাদ নয়, বড় শক্তিগুলোর সঙ্গে পাল্লা দেয়া৷''

গেল ডিসেম্বরে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও অনেকটা একই সুরে কথা বলেছিলেন৷

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের এমন প্রতিরক্ষা কৌশলের পর আবারো স্নায়ুযুদ্ধের আভাস পাচ্ছে চীন৷ তারা একে যুক্তরাষ্ট্রের স্নায়ুযুদ্ধের মানসিকতা বলে উল্লেখ করেছে৷  রাশিয়া বলেছে, যুক্তরাষ্ট্রের সাম্রাজ্যবাদী চরিত্রই কেবল সামনে আসছে৷

জেডএ/ এসিবি (রয়টার্স, এএফপি, এপি)

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ