২৫ এপ্রিল ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ১৪ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ০২এপ্রি–০৮এপ্রি ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 14 issue: Berlin, Monday 02Apr-08Apr 2018

লাশ হয়ে ফিরলেন নিখোঁজ আইনজীবী, তদন্তে নতুন মোড়

রথীশ হত্যার পরিকল্পনা হয় দুমাস আগে

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-04-04   সময়ঃ 05:37:42 পাঠক সংখ্যাঃ 82

ধারণা করা হয়েছিল, যুদ্ধাপরাধ মামলার সাক্ষী হওয়ায় এবং ইসলামি উগ্রপন্থিদের বিরুদ্ধে মামলা লড়ায় নিখোঁজ হয়ে থাকতে পারেন রংপুরের আইনজীবী রথীশ৷ তবে লাশ পাওয়ার পর র‌্যাব জানালো, স্ত্রী'র পরকীয়ার জেরে খুন হয়েছেন তিনি৷

নিখোঁজ হওয়ার পাঁচ দিন পর মঙ্গলবার মধ্যরাতে র‌্যাব রংপুর শহরে রথীশের বাড়ি থেকে আধা কিলোমিটার দূরে তাজহাট মোল্লাপাড়া এলাকার নির্মাণাধীন একটি বাড়ি থেকে লাশটি উদ্ধার করে৷ এর আগে রথীশচন্দ্র ভৌমিক বাবুসোনার স্ত্রী স্নিগ্ধা সরকার দীপা ভৌমিক এবং দীপার সহকর্মীসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ সোমবার তাজহাট উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক কামরুল ইসলাম ও মতিয়ার রহমানকে আটকের পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তদন্ত ভিন্ন দিকে মোড় নেয়৷

 ডয়চে ভেলের কন্টেন্ট পার্টনার বিডি নিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছে, রথীশের ভাই সাংবাদিক সুশান্ত ভৌমিক সুবল লাশটি তার ভাইয়ের বলে শনাক্ত করেছেন৷ রথীশের স্ত্রী দীপাকেও সেখানে নিয়ে গিয়েছিল র‌্যাব৷

র‌্যাব কর্মকর্তা জানিয়েছেন, দীপার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে তাঁরা লাশ উদ্ধার করেছেন৷ দীপার বরাত দিয়ে র‌্যাব কর্মকর্তারা জানিয়েছেন,  দুই মাস ধরে রথীশকে হত্যার পরিকল্পনা করা হয়৷ গত ২৯ মার্চ রাতে খাবারের সঙ্গে ঘুমের বড়ি খাইয়ে গলায় ওড়না পেচিয়ে শ্বাসরোধ করে তাঁকে হত্যা করা হয়৷ পরে আলমারিতে ভরে আধা কিলোমিটার দূরে তাজহাট মোল্লাপাড়া এলাকায় কামরুলের ভাইয়ের নির্মাণাধীন বাড়িতে নিয়ে গিয়ে বালির নিচে পুঁতে ফেলা হয় রথীশের লাশ৷

বুধবার দুপুরে রংপুরের র‌্যাব-১৩ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ বাহিনীর মহাপরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, ‘‘৩০ মার্চ সকাল থেকে রথীশচন্দ্রের নিখোঁজ থাকার বিষয়টি ছিল ‘তার স্ত্রীর সাজানো নাটক'৷ হত্যার ঘটনা ধামাচাপা দিতে ওই কৌশলে সবার নজর তিনি ভিন্ন দিকে সরানোর চেষ্টা করেছেন৷'' তিনি আরও জানান, ‘‘দীপা ভৌমিকের সঙ্গে তার স্কুলের সহকর্মী কামরুল ইসলামে পরকীয়া প্রেম চলছিলো৷ এ নিয়ে রথীশের সঙ্গে দীপার কলহ লেগেই থাকতো৷'' র‌্যাব জানিয়েছে, কামরুল তার দুই ছাত্রকে ৩০০ টাকা করে দিয়ে ওই গর্ত খোঁড়ার কাজটি করিয়েছিলেন৷ তাদেরও র‌্যাব আটক করেছে৷ জিজ্ঞাসাবাদে তারা বলেছে, শিক্ষকের নির্দেশে তারা ওই কাজ করেছে৷

২০১৫ সালে রংপুরের এক মাজারের খাদেম ইসলামি জঙ্গিদের হামলায় নিহত হন৷ মাত্র সপ্তাহ দুয়েক আগে  নিষিদ্ধ ঘোষিত ইসলামী জঙ্গিদল জামায়েতুল মুজাহিদীনবাংলাদেশ (জেএমবি)-র ৭ সদস্যকে ওই মামলার রায়ে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়৷ রথীশ চন্দ্র ভৌমিক সেই মামলার সরকারপক্ষীয় আইনজীবী ছিলেন৷  এছাড়া তিনি জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি হত্যামামলারও প্রধান সরকারি কৌসুলি ছিলেন৷ সেই মামলাতেও ২০১৫ সালে ৫ জেএমবি সদস্যের মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়৷ 

জামায়াতে ইসলামীর সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এটিএম আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া একাত্তরের মানবতাবিরোধী র সাক্ষীও ছিলেন রথীশ৷ গত শুক্রবার থেকে তার সন্ধান ছিল না৷

আইনজীবী রথীশ রংপুরে নানা ধরনের সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত ছিলেন৷ তিনি রংপুরে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক, আইনজীবী সমিতির সহ সভাপতি, জেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান ঐক্যপরিষদের ট্রাস্টি ছিলেন৷ নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে রথীশকে খুঁজে বের করার দাবিতে বিভিন্ন সংগঠন আন্দোলন করছিল৷

এপিবি/এসিবি (এএফপি, বিডিনিউজ টুয়েন্টিফোর ডটকম)

সারা বিশ্বের গুম পরিস্থিতি

তথ্য গ্রহণ ও প্রেরণ

বিভিন্ন দেশে গুম হওয়া ব্যক্তিদের আত্মীয়-স্বজন কিংবা মানবাধিকার সংগঠনের কাছ থেকে পাওয়া গুম সংক্রান্ত তথ্য পরীক্ষা করে সেগুলো সংশ্লিষ্ট সরকারের কাছে পাঠিয়ে থাকে জাতিসংঘের সংস্থা ডাব্লিউজিইআইডি৷ এসব ঘটনা নিয়ে সরকারগুলোকে তদন্ত করারও অনুরোধ জানিয়ে থাকে তারা৷ একটি নির্দিষ্ট সময় পর সেসব ব্যাপারে হালনাগাদ তথ্য নিয়ে থাকে ডাব্লিউজিইআইডি৷

বাংলাদেশ

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে নিয়মিত গুমের ঘটনা ঘটলেও জাতিসংঘের সংস্থাটির কাছে মোট ৩৬টির তথ্য আছে৷ এর মধ্যে একটি সরকার ও আরেকটির ব্যাপারে সূত্রের কাছ থেকে সন্তোষজনক তথ্য পাওয়ায় এখন মোট ৩৪টির বিষয়ে খোঁজখবর নিচ্ছে জাতিসংঘ৷

 

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ