২০ আগস্ট ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ৩২ সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ০৬অগা–১২অগা ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 32 issue: Berlin, Monday 06Aug-12Aug2018

রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার: সৌদি-ক্যানাডা সম্পর্কে উত্তেজনা

মানবাধিকার কর্মীদের উপর দমন-নিপীড়নের

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-08-08   সময়ঃ 15:38:30 পাঠক সংখ্যাঃ 15

সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও মানবাধিকার কর্মীদের মুক্তি দেয়ার দাবি জানানোয় দেশটিতে নিয়োজিত কানাডার রাষ্ট্রদূতকে বহিষ্কার করেছে সৌদি সরকার৷ শুধু তাই নয়, ক্যানাডায় নিযুক্ত নিজ রাষ্টুদূতকেও প্রত্যাহার করে নিয়েছে দেশটি৷

সুশীল সমাজের প্রতিনিধি ও মানবাধিকার কর্মীদের মুক্তি দেয়ার দাবিকে ‘অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ' আখ্যা দিয়ে গত সোমবার এ বহিষ্কারাদেশ দেয় সৌদি সরকার৷ প্রতিক্রিয়ার অংশ হিসেবে ক্যানাডার সাথে সব ধরনের নতুন বাণিজ্যিক চুক্তিও স্থগিত করেছে দেশটি৷

গত কয়েকমাস ধরে সৌদি সরকার মানবাধিকার কর্মী, নারী অধিকার কর্মী সহ সুশীল সাজের প্রতিনিধিদের দমন নিপীড়ন চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করে আসছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো৷ গত সপ্তাহে আন্তার্জাতিক পুরষ্কার প্রাপ্ত নারী অধিকার কর্মী সামার বাদাওয়ি সহ বেশ কয়েকজনকে আটক করে সৌদি সরকার৷

মানবাধিকার কর্মীদের উপর দমন-নিপীড়নের বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে তাঁদের দ্রুত মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানায় ক্যানাডা সরকার৷ ‘‘সামার বাদাওয়ি সহ অন্যান্য মানবাধিকার কর্মী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের গ্রেফতারে আমরা উদ্বিগ্ন৷ আমরা সৌদি সরকারকে গ্রফতারকৃত সব মানবাধিকার কর্মীকে দ্রুত মুক্তি দেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি'' ক্যানাডা সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক টুইট বার্তায় এ আহ্বান জানানো হয়৷

পালটা জবাব দেয় সৌদি সরকার৷ ক্যানাডা সাকারের এ আহ্বানকে ‘অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে উন্মুক্ত হস্তক্ষেপ' বলে টুইটারে পালটা মন্তব্য করে তাঁরা৷ সৌদি সরকারের টুইটার অ্যাকাউনট থেকে বলা হয় ‘‘ক্যানাডা  সরকারের এ অবস্থান সৌদি আরবের আভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে হস্তক্ষেপ এবং বিদেশি রাষ্ট্রসমূহের পারস্পরিক সম্পর্কের আন্তর্জাতিক নীতিমালার লঙ্ঘন৷''
 

 

তবে মানবাধিকার বিষয়ে নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়ছে ক্যানাডা৷ সৌদি আরবের এ পদক্ষেপের তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় কানাডার পররাষ্ট্র মন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিলান্ড বলেন; দেশ বিদেশে মানবাধিকার রক্ষায় কনাডা সবসময় সোচ্চার থাকবে৷

মানবাধিকার কর্মীদের মুক্তি দেয়ার বিষয়ে ক্যানাডা সরকারের এ আহ্বানের প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার ও নতুন বাণিজ্য চুক্তি স্থগিতের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকেনি সৌদি সরকার৷ স্থানীয় আল-আরাবিয়া গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা রয়টার্স-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়ছে, রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা সৌদি এয়ারলাইনস তাদের টরোন্টোগামী সকল ফ্লাইট স্থগিত করেছে৷ পাশাপাশি, ক্যানাডায় বৃত্তি নিয়ে পড়তে যাওয়া সৌদি আরবের সকল শিক্ষার্থীকে অন্য কোনো দেশে স্থানান্তরিত করবে সরকার৷ সৌদি সরকারের এ পদক্ষেপ, ক্যানাডায় পড়তে আসা দেশটির হাজার হাজার শিক্ষার্থীকে অনিশ্চয়তার মধ্যে ফেলবে, বার্তা সংস্থা এএফপিকে এ মন্তব্য করেন ক্যানাডার ওয়াটারলু বিশ্ববাদ্যালয়ের শিক্ষক প্রফেসর নেসমা মোমানি৷    

জাতীয় ও স্থানীয় ইস্যুতে পশ্চিমা দেশগুলোর সমালোচানার তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখানোর বিষয়টি নতুন নয় সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ-বিন-সালমানের৷ জার্মান ম্যাগাজিন ডেয়ার স্পিগেল-এর এক প্রতিবেদনে জানা যায়, গত মে মাসে জার্মানির সকল ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের সাথে নতুন কোনো সরকারি চুক্তির বিষয়ে স্থগিতাদেশ জারি করেছিল প্রিন্স সালমান৷

তার আগে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর লেবানন বিষেয় এক মন্তব্যের পর, জার্মানিতে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠিয়েছিল রিয়াদ৷ মানবাধিকার বিষয়ে সমালোচনার প্রেক্ষিতে, ২০১৫ সালে প্রিন্স সালমান পরিচালিত সৌদি সরকার স্টকহোমে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে প্রত্যাহার করে নেয় ও সুইডিশ নাগরিকদের সব ধরনের বাণিজ্যিক ভিসা প্রদান বন্ধ রাখে৷

ক্রাউন প্রিন্স হিসেবে নিযুক্ত হওয়ার পর মোহাম্মদ-বিন-সালমান দেশটির অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংস্কারে নানা পদক্ষেপ গ্রহন করেন৷ তবে নারী স্বধীনতা, নাগরিকদের রাজনৈতিক অধিকার সহ অনান্য সামাজিক ও রাজনৈতিক অধিকার সংরক্ষণের বিষয়ে তাঁকে খুব বেশি কার্যকর পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি৷

মানবাধিকার সংগঠন অ্যামনেস্ট ইন্টারন্যাশনাল এক বিবৃতিতে জানায়, নাগরিকদের মানবাধিকার বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের পরিবর্তে সৌদি সরকার তার সমালোচনা দমনে নিপীড়নমূলক পদক্ষেপ নিচ্ছে৷

রাজনৈতিক এ অস্থিরতা দু'দেশের বানিজ্যিক সম্পর্কের উপর প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷ ক্যানাডার অটোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারি অধ্যাপক টমাস জুনেউ এএফপিকে জানান, বর্তমানে দু'দেশের মধ্যে প্রতি বছর তিন থেকে চার বিলিয়ন ডলারের (ক্যানাডিয়ান) বাণিজ্য সম্পর্ক রয়েছে৷ রিয়াদের কাছে হালকা সাঁজোয়া যান বিক্রির বিষয়ে ২০১৪ সালে ১৫ বিলিয়ন ডলারের একটি বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর করে ক্যানাডা৷ চলমান পরিস্থিতে এ চুক্তিটি বাতিল হলে, শত শত ক্যানাডিয়ান চাকরি হারাবে বলে আশঙ্কা করেন তিনি৷

আরআর/ডিজি

 

 



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ