১৬ অক্টোবর ২০১৮ ইং
সাপ্তাহিক আজকের বাংলা - ৭ম বর্ষ ৩৮সংখ্যা: বার্লিন, সোমবার ১৭সেপ্ট–২৩সেপ্ট ২০১৮ # Weekly Ajker Bangla – 7th year 38 issue: Berlin, Monday 17Sep-23Sep 2018

কোলনে শরণার্থীদের ফেরত পাঠানোর প্রতিবাদ

জাতীয়তাবাদ একটি ভুল' শীর্ষক প্ল্যাকার্ডও দেখা গেছে৷

প্রতিবেদকঃ DW তারিখঃ 2018-09-17   সময়ঃ 17:17:46 পাঠক সংখ্যাঃ 16

জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলে বারো হাজারের বেশি মানুষ বর্ণবাদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে অংশ নিয়েছেন৷ দেশটির পূর্বাঞ্চলে উগ্র ডানপন্থিদের সমাবেশের দুই সপ্তাহ পরে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে শরণার্থীসহ নানা বিষয় উঠে এসেছে৷

জার্মানিতে আশ্রয় নেয়া ইরাকি এবং আফগান শরণার্থীদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো বন্ধের দাবিতে কোলন, ডর্টমুন্ড এবং গেলসেনকিয়রশেন শহরে রবিবার বারো হাজারের মতো মানুষ রাজপথে বিক্ষোভ করেছেন৷ জার্মানিতে আশ্রয়ের আবেদন প্রত্যাখ্যান হওয়া ওই দুই দেশের মানুষদের ফেরত পাঠানোর বিরোধিতা করা অ্যাক্টিভিস্টরা মনে করেন, দেশ দু'টিতে বসবাস এখনো বিপজ্জনক৷ তাই, ইরাক এবং আফগানিস্তানের মতো বি

পজ্জনক দেশে শরণার্থীদের যাতে ফেরত পাঠানো না হয় সেই দাবি জানিয়েছেন তাঁরা৷

‘কোলন টেইকস এ স্টান্ড!' শীর্ষক প্রতিবাদ সমাবেশে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কোলনের রক্ষণশীল মেয়র হেনরিয়েটে রিকার, যাঁকে ছুরিকাহত করেছিল অভিবাসীবিরোধী এক উগ্রপন্থি৷ রবিবারের কর্মসূচি থেকে শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো বন্ধের দাবির পাশাপাশি জার্মানির কেমনিৎস শহরে সম্প্রতি উগ্র ডানপন্থিদের সহিংসতারপ্রতিবাদও জানানো হয়েছে৷ বর্ণবাদ এবং বিদেশি-ভীতির কোনো স্থান জার্মানিতে নেই বলেও স্লোগান দিয়েছেন প্রতিবাদকারীরা৷

কোলনে প্রতিবাদকারীদের হাতে ‘সমুদ্র থেকে মানুষ উদ্ধার আমাদের দায়িত্ব' এবং ‘জাতীয়তাবাদ একটি ভুল' শীর্ষক প্ল্যাকার্ডও দেখা গেছে৷

 

প্রসঙ্গত, আফগানিস্তানের মতো সংঘাতপ্রবণ একটি দেশকে ‘নিরাপদ' ঘোষণা করে জার্মানিতেই তীব্র সমালোচনার মুখে রয়েছে ম্যার্কেল সরকার৷ সম্প্রতি জার্মানি থেকে জোর করে ফেরত পাঠানো এক আফগান কাবুলে পৌঁছানোর পর আত্মহত্যা করায় বিষয়টি নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়৷ এমনকি নিজের ৬৯তম জন্মদিনে ৬৯জন শরণার্থীকে নিজ দেশ ফেরত পাঠানো নিয়ে এক কৌতুক করেও সমালোচিত হন জার্মানির রক্ষণশীল স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হর্স্ট সেহোফার৷

শরণার্থীদের ফেরত পাঠানো ঠেকাতে মাঝেমাঝে বিভিন্ন বিমানবন্দরেও প্রতিবাদ কর্মসূচিতে অংশ নেন জার্মানরা৷ তাঁদের সেসব কর্মসূচিতে কিছুটা কাজও হয়৷ কখনো কখনো পাইলটরা শরণার্থীদের বিমানে তুলতে অস্বীকৃতি জানালে তাঁদের ফেরত পাঠানো স্থগিত থাকে৷

উল্লেখ্য, কোলনে সমাবেশ ঘিরে উত্তপ্ত রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরির আশঙ্কা করা হলেও বাস্তবে তেমনটা হয়নি৷ বরং অনেকটা উৎসবে পরিণত হয় সমাবেশটি৷

এআই/এসিবি (এএফপি, ডিপিএ)



আজকের কার্টুন

লাইফস্টাইল

আজকের বাংলার মিডিয়া পার্টনার

অনলাইন জরিপ

প্রতিবেশী রাষ্ট্র মিয়ানমার রোহিঙ্গা দেরকে অত্যাচার করে ফলে ২০১৭ তে অগাস্ট ২৫ থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১ মাসে ৫ লক্ষ্য রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠী বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে, আপনি কি মনে করেন বাংলাদেশ শরণার্থী দেরকে আবার ফিরে পাঠিয়ে দিক?

 হ্যাঁ      না      মতামত নেই    

সংবাদ আর্কাইভ